পুষ্টি

উচ্চ রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণে বিট জুস ম্যাজিকের মত কাজ করে। রেসিপিটি জানুন

beet juice recipe

উচ্চ রক্তচাপ নিয়ে ভোগেন না এমন ব্যক্তি খুব কম দেখা আজকাল। বয়স বাড়ার সাথে আর কিছু না বাড়ুক, ব্লাড প্রেসার বাড়া চাই-ই চাই। অপেক্ষাকৃত কম বয়স্ক ব্যক্তিরাও কিন্তু কম যান না। আজকাল অনেক তরতাজা তরুণদেরও উচ্চ রক্তচাপে ভুগতে দেখা যায়। দৈনন্দিন জীবনের অনিয়ম, দুশ্চিন্তা ও চাপের জন্য উচ্চ রক্তচাপে আক্রান্ত ব্যক্তির সংখ্যা যেন দিন দিন বেড়েই চলেছে।

তবে সুখের কথা হচ্ছে, হাতের কাছে এমন কিছু খাবার আছে যা উচ্চ রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণে কার্যকর ভূমিকা পালন করে। বিট জুস এমন একটি পানীয়। চলুন জেনে নেই বিট জুস কেন ও কীভাবে উচ্চ রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণ করে।

বিট জুসের উপকারিতা
কুইন মেরি ইউনিভার্সিটি অফ লন্ডন এর একটি গবেষণায় পাওয়া গেছে নিয়মিত এক গ্লাস বিটের জুস পান করলে উচ্চ রক্তচাপ কমে যায়। এমনকি যে সকল রোগী চিকিৎসার মাধ্যমেও উচ্চ রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণে আনতে ব্যর্থ হয়েছেন, বিট জুস পান করে তারাও উপকৃত হয়েছে।
কি আছে বিটে? বিটের জুস কিভাবে উচ্চ রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণে সহায়তা করে? বিটের মধ্যে প্রচুর পরিমাণে অজৈব নাইট্রেট পাওয়া যায়। মানুষের শরীরের ভেতরে এই নাইট্রেট নাইট্রিক অ্যাসিডে রুপান্তরিত হয়। এই নাইট্রিক অ্যাসিড আমাদের রক্তনালীগুলোকে বিস্তৃত এবং প্রশমিত রাখে। ফলে রক্ত সঞ্চালনে কোনরূপ বাধা সৃষ্টি হয় না এবং রক্তচাপ স্বাভাবিক থাকে।

কীভাবে বিট জুস তৈরি করা যায়?

বিট খেতে হালকা মিষ্টি। তাই এই জুসে অন্য কিছু না দিলেও খেতে অসাধারণ সুস্বাদু হয়। বিট জুসের প্রস্তুত প্রণালী নিম্নে বর্ণনা করা হলো

বিট- ৬/৭ টি

পানি- পরিমান মতো (ঘন করে খেতে চাইলে কম দেয়াই ভাল)

পুদিনা পাতা- সাজানোর জন্য

বিট ভাল করে ধুয়ে মাটি ছাড়িয়ে নিন। লক্ষ রাখবেন যেন খুব ভাল ভাবে পরিষ্কার হয়।
এবার দুই প্রান্ত ছুরি দিয়ে কেটে নিন। ছোট ছোট করে ফালি করে ব্লেন্ডারে দিয়ে দিন। বিটের খোসা ফেলার দরকার নেই।
এবার ব্লেন্ডারে পানি দিন। ২-৩ মিনিট ব্লেন্ড করুন।
একটি জুসের গ্লাসে ঢালুন। উপরে একটু পুদিনা পাতা ছড়িয়ে দিয়ে পরিবেশন করুন।

Comments

Please comments

সবচেয়ে জনপ্রিয়

Copyright © 2016 BanglaMag.

শীর্ষে